ad720-90

`বিএনপি-জামায়াত গোষ্ঠী গুজব ছড়িয়ে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিল করতে চাইছে”


Saturday, 4th August , 2018, 03:46 pm,BDST

Print Friendly, PDF & Email


লাস্টনিউজবিডি, ০৪ আগস্ট, নিউজ ডেস্ক : নিরাপদ সড়ক নিয়ে শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে কোনো দ্বিমত নেই জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় এই আন্দোলন নিয়ে অনলাইনে নান গুজবের বিষয়টি তুলে ধরেছেন। বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত গোষ্ঠী এসব গুজব ছড়িয়ে তাদের রাজনৈতিক ফায়দা হাসিল করতে চাইছে।

আন্দোলন দীর্ঘায়িত হওয়ায় জনভোগান্তির বিষয়টিও তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা। বলছেন, সাধারণ মানুষ এখন ভুগছে।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা শিক্ষার্থীদের আবেগকে কাজে লাগিয়ে একটি গোষ্ঠীর অনলাইনে উস্কানির বিষয়টি তুলে ধরেছেন।

গত ২৯ জুলাই ঢাকার বিমানবন্দর সড়কে বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর দিন থেকে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন শুরু হয়। আর তারা নয় দফা দাবি তুলে ধরে।

সরকারের পক্ষ থেকে এরই মধ্যে দাবি পূরণের আশ্বাস দেয়া হয়েছে। কিন্তু যেসব দাবি তাৎক্ষণিক পূরণের সুযোগ নেই, সেগুলো বাস্তবায়নের দাবিতে টানা ছয় দিন ধরে রাস্তায় যান চলাচল স্থবির করে সড়কে অবস্থান চালু রেখেছে ছাত্ররা।

এর মধ্যে আবার পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা নিরাপত্তাহীনতার কথা বলে বাস চালানো বন্ধ করে দিয়েছে। দুইয়ে মিলে ত্রাহিত্রাহি অবস্থা মানুষের। শুরুর দিকে ছাত্রদেরকে যারা সমর্থন দিয়েছিলেন, তারাই এখন বিরক্তি প্রকাশ করছেন।

এর মধ্যে আবার সামাজিক মাধ্যমে নানা মিথ্যা কথা বলে ছাত্রদের উস্কানির চেষ্টা করা হচ্ছে। পুরনো ছবি ব্যবহার করে সেগুলো ছাত্রদেরকে নির্যাতনের প্রমাণ হিসেবে তুলে ধরা হচ্ছে। আন্দোলনে যোগ দেয়ায় স্কুল থেকে বের করে দেয়ার গুজবও ছড়ানো হচ্ছে।

জয় লেখেন, ‘পুলিশকে নির্দেশনা দেয়া ছিল অত্যন্ত ধৈর্য ও সংবরণ এর সাথে পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে। তারপরেও আমরা দেখতে পাচ্ছি যে একটি গোষ্ঠী অনলাইনে মিথ্যা তথ্য ও আগের ছবি পোস্ট করে শিক্ষার্থীদের উত্তেজিত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।’

এই আন্দোলনে উস্কানির পেছনে বিএনপি-জামায়াত চক্র কাজ করছে বলেও মনে করেন প্রধানমন্ত্রীর ছেলে।

‘বিএনপি আজকে বলেছে যে এটি সরকার পতনের আন্দোলনের শুরু।… সবকিছু মিলিয়ে বোঝা যাচ্ছে, নিজেদের দাবির জন্য জনসমর্থন হারিয়ে বিএনপি-জামায়াত এখন আবারও নাশকতা ও সহিংসতার পথ বেছে নিয়েছে। অনলাইনে মিথ্যা তথ্য ও ছবি ছড়িয়ে শিক্ষার্থী ও তরুণদের বিভ্রান্ত করতে তারা তৎপর।’

স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যখন স্থবিরতা তখন আবার কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরাও দেশজড়ে ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন।

জয় লেখেন, ‘কোটা সংস্কারেরও সকল দাবিই আমাদের সরকার মেনে নিয়েছে এবং ইতিমধ্যেই একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন কমিটি সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।’

কোটা ইস্যুর ‘সমাধানের পরও’ তাদের ‘তথাকথিত নেতাদের’ কর্মসূচি দেখে জয় চিন্তা করতে ‘বাধ্য হচ্ছেন’ যে তাদের সাথে বিএনপি-জামায়াতের অর্থনৈতিক কোনো সমঝোতা হয়েছে কি না। লেখেন, ‘কারণ বিষয়টি কাকতালীয় বলে উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না।’

Print Friendly, PDF & Email





সর্বপ্রথম প্রকাশিত

Sharing is caring!

Comments

So empty here ... leave a comment!

Leave a Reply

Sidebar



adapazarı escort adapazarı escort adapazarı escort adapazarı escort adapazarı escort sakarya travesti webmaster forum