ad720-90

সারা দেশে বাস্তবায়নে ব্যবসায়ীরা একমত


‘এমআরপি নীতিমালা ২০১৮’ এবং ‘ওয়ারেন্টি নীতিমালা ২০১৮’ কার্যকর করার উদ্যোগ নিয়েছে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাণিজ্য সংগঠন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি। বৃহস্পতিবার কম্পিউটার ব্যবসায় খাতের নেতারা তাঁদের মতামত দেন। ছবি: সংগৃহীতসারা দেশে কম্পিউটার ও কম্পিউটার যন্ত্রাংশের ওপর ‘এমআরপি নীতিমালা ২০১৮’ এবং ‘ওয়ারেন্টি নীতিমালা ২০১৮’ কার্যকর করার উদ্যোগ নিয়েছে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাণিজ্য সংগঠন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি। গতকাল বৃস্পতিবার রাজধানীর বিসিএস ইনোভেশন সেন্টারে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। এ সময় বাংলাদেশের সব কম্পিউটার ব্যবসায় খাতের নেতারা তাঁদের মতামত দেন।

সভায় বিসিএসের সভাপতি সুব্রত সরকার বলেন, ‘আমরা চাই ক্রেতা এবং বিক্রেতাদের মধ্যে আর কোনো ধরনের ভুল-বোঝাবুঝি না হয়। সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য (এমআরপি) নির্ধারিত হওয়ার কারণে ক্রেতাদের প্রতারিত হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। কম্পিউটার পণ্যের গায়ে লাগানো এমআরপি স্টিকারে উল্লেখ করা মূল্যে পণ্য কেনার সুযোগ থাকছে ভোক্তাদের।’

সব কম্পিউটার ব্যবসায়ী মিলে ক্রেতাকে উপযুক্ত সেবা দিলে ব্যবসাও বাড়বে বলে তাঁরা আশা প্রকাশ করেন। সুব্রত সরকার বলেন, সব জায়গায় একই মূল্যে পণ্য বিক্রি হওয়ার কারণে কম্পিউটার এবং এর যন্ত্রাংশের বিক্রি ঢাকার বাইরেও বাড়বে।

যেসব প্রযুক্তি পণ্যে প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান আজীবন বা লাইফটাইম ওয়ারেন্টির উল্লেখ করে থাকে, বিসিএসের ওয়ারেন্টি নীতিমালায় সেসব পণ্যের ক্ষেত্রে তিন বছর ওয়ারেন্টি দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। এতে কি ক্রেতা বঞ্চিত হবেন না? জবাবে সুব্রত সরকার প্রথম আলোকে বলেন, ‘আসলে আমরা তিন বছর বলছি কারণ অনেক সময় অনেক বিক্রেতা বলে ফেলে পণ্যের উৎপাদন নেই বা শেষ। এমনটা যেন না ঘটে, তাই আমরা বলছি তিন বছর দিতেই হবে।’

বরিশাল থেকে আসা বিসিএসের শাখা কমিটির উপদেষ্টা রইস উদ্দিন বলেন, ‘আসলে আমাদের এমআরপি ও ওয়ারেন্টি নীতিমালার আন্দোলনটি অনেক দিনের। আমরা আগে এমআরপির ক্ষেত্রে যে যার মতো দাম ধরে দিতাম। আর এর জন্য বাজারে ক্রেতারা বেশির ভাগ ক্ষেত্রে বিরক্ত হতো। এখন থেকে সেটি আর হবে না। একই দামে ক্রেতারা তাঁদের কম্পিউটার পণ্যটি কিনতে পারবেন। আর বিসিএসের এমন উদ্যোগে আমরা ব্যবসায়ীরা খুশি।’
সিলেটের কম্পিউটার ব্যবসায়ী এ বিসিএসের শাখা কমিটির সচিব এ এস এম জি কিবরিয়া বলেন, ‘কম্পিউটার পণ্য কেনাবেচায় এমআরপি ও ওয়ারেন্টি নীতিমালায় ক্রেতা ও বিক্রেতা দুজনই উপকৃত হবে। আমরা এমন উদ্যোগের সঙ্গে আছি।’

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন বিসিএসের সহসভাপতি ইউসুফ আলী, মহাসচিব মোশারফ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ জাবেদুর রহমান এবং বিসিএসের শাখা কমিটির চেয়ারম্যান, সাধারণ সম্পাদকসহ অনেকেই।
রাহিতুল ইসলাম, ঢাকা





সর্বপ্রথম প্রকাশিত

Sharing is caring!

Comments

So empty here ... leave a comment!

Leave a Reply

Sidebar



adapazarı escort adapazarı escort adapazarı escort adapazarı escort adapazarı escort sakarya travesti webmaster forum