ad720-90

এলো ক্যাননের ফুল-ফ্রেইম মিররলেস ক্যামেরা


একই খাতে স্বদেশীয় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠান নিকন তাদের ফুল-ফ্রেইম মিররলেস ক্যামেরা ঘোষণার কিছুদিন পরই এই নতুন খাতে নিজেদের পণ্য ঘোষণা করলো ক্যানন। এর মানে হচ্ছে এই দুই জাপানি প্রতিষ্ঠানই এখন উন্নত মানের মিররলেস ক্যামেরার বাজারকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে, বলা হয়েছে প্রযুক্তি সাইট ভার্জ-এর প্রতিবেদনে।

ইওএস আর নিয়ে ইতোমধ্যেই তথ্য ফাঁস হয়েছিল। সে সময় এর ফুল-ফ্রেইম সেন্সর ৩০.৩ মেগাপিক্সেলের বলা খবরে উল্লেখ করা হয়। উন্মোচনের পর এই স্পেসিফিকেশন আগের ফাঁস হওয়া তথ্যের সঙ্গে মিলে গিয়েছে। ১০০-৪০,০০০ আইএসও রেইঞ্জের এই ক্যামেরার সেন্সরে ব্যবহার করা হয়েছে ডুয়াল-পিক্সেল অটোফোকাস আর এটি ক্যাননের ডিজিক ৮ ইমেইজ প্রসেসরের সঙ্গে যুক্ত। এতে একটি পুরোপুরি স্পষ্ট টাচস্ক্রিন, ওলেড ইলেকট্রনিক ভিউফাইন্ডার আর ক্যামেরার একদম উপরে একটি ইনফরমেশন প্যানেল রাখা হয়েছে।

 

এটি দেখতে অনেকটা পাতলা ফুল-ফ্রেইম ডিএসএলআর-এর মতো। এর নিয়ন্ত্রণে কিছুটা পরিবর্তন দেখা গিয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে সবগুলো লেন্সের জন্য একটি আলাদা কনট্রোল রিং আর জুমিং এবং ম্যানুয়াল ফোকাসের জন্য ডায়াল রাখা হয়েছে। এর ফলে ব্যবহারকারীরা লেন্স থেকেই অ্যাপারচার সেটিংস ঠিক করতে পারবেন। সেইসঙ্গে ক্যামেরার পেছনে একটি স্লাইডিং ‘লেফট-রাইট’ কনট্রোল বার রাখা হয়েছে যা বিভিন্ন ফিচারের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।

এর সঙ্গে আনা চারটি লেন্স আনা হচ্ছে, ৩৫মিমি এফ/১.৮ ম্যাক্রো, ৫০মিমি এফ/১.২ মিমি এল, ২৮-৭০মিমি এফ/২ এল এবং ২৪-১০৫মিমি এফ/৪ এল। ইওএস এসএলআর লেন্সগুলোর সঙ্গে ব্যবহারের জন্য তিনটি অ্যাডাপটারও আনা হয়েছে, এর মধ্যে একটিতে ইওএস আর কনট্রোল রিং ও অন্য একটিতে ড্রপ-ইন ফিল্টারের সঙ্গে ব্যবহারের সুবিধা রাখা হয়েছে।

এই ক্যামেরার শুধু বডির দাম রাখা হয়েছে ২,২৯৯ ডলার আর এর সঙ্গে একটি ২৪-১০৫মিমি লেন্সসহ নিলে দাম পড়বে ৩,৩৯৯ ডলার। চলতি বছর ১২ সেপ্টেম্বর থেকে এই ক্যামেরার প্রি-অর্ডার শুরু হচ্ছে আর অক্টোবরের শেষে এটি বাজারে ছাড়া হবে।





সর্বপ্রথম প্রকাশিত

Sharing is caring!

Comments

So empty here ... leave a comment!

Leave a Reply

Sidebar



adapazarı escort adapazarı escort adapazarı escort adapazarı escort adapazarı escort sakarya travesti webmaster forum